Skip to content
Default screen resolution  Wide screen resolution  Increase font size  Decrease font size  Default font size 
অবস্থান:    প্রথম পাতা arrow জীয়ন সংবাদ arrow ডাল,তৈল জাতীয় ফসলচাষে বিনা'র প্রযুক্ত
ডাল,তৈল জাতীয় ফসলচাষে বিনা'র প্রযুক্ত মুদ্রণ ইমেল

বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান খাদ্য চাহিদা পূরণে প্রায় সব জমি ধান চাষাবাদের অধীনে চলে যাচ্ছে৷ ফলে ডাল ও তৈল জাতীয় ফসলের আবাদ অনেক কমে গেছে৷ কিন্তু বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) অনেকগুলো উন্নত, টেকসই জাতের ধান, ডাল ও তৈল জাতীয় ফসলের জাত উদ্ভাবন করেছে৷ আমিষের পুুষ্টি চাহিদা নিরসনে 'বিনা' এগুলোর চাষ সমপ্রসারণে ব্যাপক উদ্যোগও গ্রহণ করেছে যা আমাদের খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টির অভাব দূরীকরণে অন্যতম সহায়ক ভূমিকা রাখছে৷ গতকাল সোমবার 'বিনা' কতৃক আয়োজিত "ধান, তৈল ও ডাল ফসলের চাষাবাদ ও বীজ সংরক্ষণ" শীর্ষক কৃষক ও উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণে এমনই আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম. এ. সাত্তার মণ্ডল৷

বিনা'র মহাপরিচালক ড. এম. সায়েদুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) কৃষিবিদ মোজাম্মেল হক৷ প্রশিক্ষণে স্বাগত ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বিনা'র পরিচালকদ্বয় ড. আহমেদ আলী হাছান ও ড. এম. এ. ছালাম৷ বিনার মহাপরিচালক প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবিত প্রযুক্তি ও বিভিন্ন গবেষণা কার্যক্রম উপস্থাপন করেন৷ 'বিনা' এ পর্যন- ১১ টি ফসলের ৪৩ টি উন্নত ও অধিক ফলনশীল জাত এবং অনেকগুলো প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে৷

প্রধান অতিথি উপাচার্য প্রফেসর ড. এম. এ. সাত্তার মণ্ডল বলেন, কৃষি গবেষণার ফলাফল জাতি ভোগ করছে৷ সবচেয়ে কঠিন কাজ ডাল ও তৈল এর জাত উদ্ভাবনে সফল হয়েছে বিনা'র বিজ্ঞানীগণ৷ এতে আবাদ ও ফলন বৃদ্ধি পাবে, আমিষের ঘাটতি পূরণ হবে৷ প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নেই উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কৃষকদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ ও মনিটরিং বৃদ্ধি করতে হবে৷ কৃষি গবেষণায় বিনা'র সাফল্যে তিনি গর্বিত বলে সকল প্রকার সহযোগিতা, মতবিনিময় ও বিজ্ঞানের উত্‍কর্ষ সাধনে একসাথে কাজ করার আহবান জানান৷ বিশেষ অতিথি কৃষিবিদ মোজাম্মেল হক সুনির্দিষ্ট ভিশন নিয়ে অঞ্চল ভিত্তিক ফসল চাষাবাদের পরামর্শ দেন৷ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন টিসিপি বিভাগের প্রধান ড. এম. রইসুল হায়দার৷ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণাথর্ীদের মাঝে বিনা উদ্ভাবিত বিভিন্ন ফসলের বীজ বিতরণ করেন৷

এ প্রশিক্ষণে কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সমপ্রসারণ কেন্দ্র (বাউএক ) এর ১১০ জন কৃষক-কৃষাণী ও উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা অংশ গ্রহণ করেন৷ বিনা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এ ধরনের ধারাবাহিক কৃষক প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে৷

তথ্যসূত্র : ড. নিয়াজ পাশা, বিনা, ময়মনসিংহ
 
< আগে   পরে >
      
bnr.png